1. ajkernirbangla@gmail.com : দৈনিক আজকের নীরবাংলা : দৈনিক আজকের নীরবাংলা
  2. info@www.ajkernirbangla.com : দৈনিক আজকের নীরবাংলা :
বুধবার, ১৭ জুলাই ২০২৪, ০২:৩৪ পূর্বাহ্ন
সর্বশেষ :
ফতুল্লার নন্দলালপুরের ভূমিদস্যু প্রতারক আলতাফ হোসেন গ্রেফতার শৈলকুপায় সামাজিক দ্বন্দ্বের বলি ২৫ কৃষকের ৪০ বিঘা জমির কলাগাছ! শাক দিয়ে মাছ ঢাকতে চায় না’গঞ্জ পাসপোর্ট দপ্তর কেঁচো খুড়তে সাপ বেড়িয়ে আসছে! আ’লীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে খান মাসুদের পক্ষ থেকে বিশাল মিছিল না’গঞ্জ সাংবাদিক ইউনিয়নের নির্বাচনে সালাম-স্বপন-শাওন প্যানেলের মনোনয়ন জমা না’গঞ্জে মেট্রোরেলসহ কুয়াকাটার রেলপথে চীনের বিনিয়োগ চায় সরকার পুলিশ ও ম্যাজিস্ট্রেট ছাড়াই সোনারগাঁয়ে ১৬শ’অবৈধ গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্ন বন্দরে আলোচিত মনু হত্যায় আটক ২ জাকির খানের বিরুদ্ধে দু’জনের সাক্ষ্যগ্রহণ ফতুল্লা থানা মৎস্যজীবী দলের কমিটি ঘোষণা

বন্দরে যুবককে অপহরন করে বিকাশে চাঁদা দাবীর ঘটনায় গ্রেফতার ৭

বন্দর সংবাদদাতা
  • প্রকাশিত: বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন, ২০২৪
  • ১৯ বার পড়া হয়েছে

নারায়ণগঞ্জ বন্দরে লতা হারবাল কোম্পানীতে কর্মরত গোলাম কিবরিয়া(৩০) নামে এক ব্যাক্তিকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক মেসেঞ্জারে কল দিয়ে ডেকে নিয়ে একটি নির্জনস্থানে আটক করে চাঁদার দাবিতে ৪ জনকে গ্রেফতার করেছে বন্দর থানা পুলিশের একটি দল।

এ সময় পুলিশ আটককৃতদের কাছ থেকে চাদা আদায়ের নগদ ৪হাজার টাকা ও একটি মোবাইল সেট উদ্ধার করতে সক্ষম হয়। গত মঙ্গলবার রাতে লক্ষনখোলা চায়না ফ্যাক্টরীর সামনে অভিযান চালিয়ে এদের গ্রেফতার করা হয়।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন থানার নবীগঞ্জ নোয়াদ্দা এলাকার পির মোহাম্মদের ছেলে সুমন(২৫),দক্ষিন লক্ষনখোলা এলাকার শহিদুল্লাহ মিয়ার ছেলে আহমেদ হাসান(২৫),দাসেরগাও এলাকার আক্তার হোসেনের ছেলে জুনায়েদ(২১) ও নোয়াদ্দা জলিল মিয়ার ছেলে নাঈম(২৬)। এ ব্যাপারে ভূক্তভোগী গোলাম কিবরিয়া বাদী হয়ে ১৭জনকে আসামী করে অপহরন ও জখম, চাদাদাবী তৎসহ মামলা দায়ের করেন। ভুক্তভোগী গোলাম কিবরিয়া মামলার এজাহারে উল্লেখ করেন,আমি লতা হারবাল কোম্পানীতে চাকুরী করি ।

নোয়াদ্দা এলাকার নাসরিনের সাথে আমার সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে পরিচয় হয়। সেই সুবাদে মেসেঞ্জারে কথা হয়। আমাকে তার সাথে দেখা করতে যেতে বলে। নাসরিনের কথামত আমি বন্দর লক্ষনখোলা চায়না ফ্যাক্টরীর সামনে পৌছাইলে নাসরিন আমাকে নিয়ে তারই সহযোগী নবীগঞ্জ নোয়াদ্দা এলাকার পির মোহাম্মদের ছেলে সুমন,দক্ষিন লক্ষনখোলা এলাকার শহিদুল্লাহ মিয়ার ছেলে আহমেদ হাসান, দাসেরগাও এলাকার আক্তার হোসেনের ছেলে জুনায়েদ ও নোয়াদ্দা জলিল মিয়ার ছেলে নাঈমসহ অজ্ঞাতনামা ১০/১২জন অপহরনকারী কারীরা আমাকে জোরপূর্বক অপহরন করিয়া ধরে নিয়ে দাসেরগাঁ জামাল সাহেবের পুকুরপাড়ে নিয়ে ৪ঘন্টা আটক করে ডাসা দিয়ে পিটিয়ে মারাতœক জখম করে।

পরে নাসরিন আমার কাছ থেকে ২লক্ষ টাকা চাদা দাবী করে। আমার কাছে থাকা ৪হাজার টাকা ও মোবাইল ছিনিয়ে নেয়। পরে অপহরনকারীরা আমার মোবাইল থেকে আমার স্ত্রীকে ফোন করিয়া আমার কান্নাকাটির শব্দ শুনাইয়া আমার পিতার কাছ থেকে বিকাশের মাধ্যমে চাদা দাবী করে। আমার পিতা অপহরনকারীরদেও দেয়া বিভিন্ন নাম্বাওে মোট ৬৬হাজার টাকা বিকাশে প্রদান করে। পরে অপহরনকারীরা আমাকে প্রাননাশের হুমকি দিয়ে লক্ষনখোলা মেইনরোডে ফেলে চলে যায়।

আমি রাত ২টায় আহতাবস্থায় পুলিশের টহল গাড়ী দেখে সংকেত দিলে আমাকে উদ্ধার করে এবং ঘটনাস্থল পরিদর্শন করিয়া ৪জন আসামী গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়। এ বিষয়ে বন্দর থানার ওসি গোলাম মোস্তফা বলেন,ঘটনাটি জানতে পেরে দ্রুত ঘটনাস্থলে পুলিশ অভিযান চালিয়ে ৪ জন চাঁদাবাজকে গ্রেফতার করে মামলা দিয়ে আদালতে পাঠিয়েছি। অপরাপর আসামীদের গ্রেফতারে আমাদের অভিযান অব্যহত আছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

আরো সংবাদ পড়ুন

পুরাতন সংবাদ পড়ুন

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
প্রযুক্তি সহায়তায়: ইয়োলো হোস্ট